সংবাদ শিরোনাম
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আ’লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু।। দলীয় মনোনয়ন ফরম কিনলেন বর্তমান মেয়র মিসেস নায়ার কবির বিজয়নগরে গৃহহীনদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার “গৃহনির্মাণ ” কাজ পরিদর্শন করলেন নাছিমা মুকাই আলী শ্রীমঙ্গলের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোহন দেবনাথের পরলোক গমন ঢাকা-চট্রগ্রাম রেলপথের ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অজ্ঞাত এক ব্যক্তির গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় “করোনাকালীন সংকট মোকাবেলায় প্রাথমিক শিক্ষা কার্যক্রম বাস্তবায়ন, চ্যালেঞ্জ ও করণীয়” শীর্ষক ভার্চুয়াল মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত নাসিরনগরে চলছে চ্যাঁপা শুটকী তৈরীর ধুম বাঞ্ছারামপুরে মসজিদে প্রেমিকা নিয়ে জনতার হাতে আটক ইমাম।। মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দিলেন পুলিশ পারিবারিক কলহের জের আখাউড়ায় গৃহবধূর আত্মহত্যা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এসএসসির ৯১ব্যাচের শিক্ষার্থীদের মিলন মেলা অনুষ্ঠিত সরাইলে স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক সংস্কার কাজে যোগদান করে স্থানীয় সাংসদের সমালোচনা করলেন সাবেক এমপি মৃধা
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সাড়ে ৫শত মন্ডপে চলছে দুর্গা পূজার প্রস্তুতি।। কমানো হয়েছে প্রতিমার সাইজ ও সাজসজ্জা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সাড়ে ৫শত মন্ডপে চলছে দুর্গা পূজার প্রস্তুতি।। কমানো হয়েছে প্রতিমার সাইজ ও সাজসজ্জা

স্টাফ রিপোর্টার//সময়নিউজবিডি 
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধমর্ীয় উৎসব দুর্গাপূজা উপলক্ষে চলছে শেষ মুহুর্তের প্রস্ততি। আগামী ২২ অক্টোবর মহাষষ্ঠী পূজার মধ্যদিয়ে পাঁচদিন ব্যাপী শারদীয় দূর্গোউৎসব শুর“ হবে। এখন চলছে শারদীয় দুর্গোৎসবের দিনগননা।

চলতি বছর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৫৫৫টি মন্ডপে অনুষ্ঠিত হবে শারদীয় দুর্গাপূজা। গত বছরের তুলনায় এ বছর পূজা মন্ডপের সংখ্যা কমেছে ২৪টি। গত বছর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় ৫৭৯টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হয়।
এ বছর ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলায় ( পৌরসভা সহ) -৭০টি, নাসিরনগর উপজেলায় ১৪৫টি, সরাইল উপজেলায়-৪৭টি, কসবা উপজেলায়-৫০টি, আখাউড়া উপজেলায়-১৯টি, আশুগঞ্জ উপজেলায়-১২টি, বিজয়নগর উপজেলায়-৫২টি, নবীনগর উপজেলায়-১১৯টি ও বাঞ্ছারামপুর উপজেলায়-৪১টি পূজামন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। 
এদিকে পূজাকে নিয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে আগ্রহ থাকলেও তেমন উচ্ছাস নেই। করোনা ভাইরাসের প্রভাব ও সরকারি নির্দেশনার কারনে তাদের আনন্দে কিছুটা ভাটা পড়েছে। এবছর প্রতিমার আকার ও  মন্ডপগুলোর প্যান্ডেল অন্যান্য বছরের তুলনায় ছোট করা হয়েছে।
বর্তমানে মন্ডপগুলোতে চলছে ডেকোরেশন ও প্রতিমাতে রঙের কাজ। প্রতিমা শিল্পীরা প্রতিমা গুলোকে শৈল্পিক রূপ দেয়ার জন্যে শেষ মুহুর্তের তুলির আঁচর ও সাজ-শয্যার কাজ করছেন।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার কান্দিপাড়ার প্রতিমা শিল্পী ঝন্টু পাল, সদর উপজেলার মাছিহাতা ইউনিয়নের নোয়াপাড়া গ্রামের হিমাংশু পাল ও রবীন্দ্র পাল জানান, করোনা ভাইরাসের প্রভাবে এবছর প্রতিমার সাইজ ছোট করা হয়েছে। প্রতিমার আকার ছোট হওয়ায় তাদের টাকার পরিমানও অনেক কমে যাবে। তারা জানান, বর্তমানে প্রতিমাতে চলছে রঙতুলি ও সাজ-সজ্জার কাজ।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার পূর্ব পাইকপাড়ার গগন সাহা বাড়ী রোডের সার্বজনীন পূজা কমিটির সাধারন সম্পাদক আশিষ কুমার সাহা জানান, করোনা ভাইরাসের কারনে এবছর পূজার আয়োজন অনেকটা 
কাটছাট করা হয়েছে। তিনি বলেন, এবছর প্রতিমা ও প্যান্ডেলের আকার ছোট করা হয়েছে। তাছাড়াও সাদামাটা আলোকসজ্জা করা হবে। সাউন্ড সিস্টেম বাদ দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা উদযাপন করা হবে।
পূর্বপাইকপাড়া ঐক্যতান যুব সংঘের সভাপতি লিটন সাহা জানান, দশভূযা দেবি দূর্গামায়ের আগমনী বার্তায় ধরনী আজ বেশ পুলকিত। তবে করোনার কারণে এ বছর ভক্তকূলে  আনন্দে কিছুটা ভাটা পরেছে। তিনি  বলেন, এ বছর পূজায় সব কিছু কাটছাট করা হয়েছে।
পৌর এলাকার পূর্ব পাইকপাড়ার দাস পাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটির আয়োজক সত্যরঞ্জন দাস জানান, করোনার কারণে এ বছর স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্বল্প পরিসরে পূজা উদযাপন করা হবে।
সনাতনী বাংলা পঞ্জিকা অনুযায়ী এবছর আগামী ২২ অক্টোবর মহাষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে পাঁচ দিন ব্যাপী শারদীয় দূর্গোউৎসব শুর“ হবে। ২৩ অক্টোবর শুক্রবার সকালে অনুষ্ঠিত হবে মহাসপ্তমী বিহিত পূজা। এই দিনে ষোড়শ উপাচারে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে অষ্টমী, নবমীর পর ২৬ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে বিজয় দশমী। 
পৌর এলাকার কান্দিপাড়ার শিমু শীল বলেন, করোনার কারণে আমরা সতর্কতার সাথে পূজা করবো। দেশ ও জাতির কল্যান কামনায় প্রার্থনা করবো।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সোমেশ রঞ্জন রায় জানান, এ বছর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৫৫৫টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। গত বছর হয়েছিলো ৫৭৯টি মন্ডপে। এ বছর পূজা কমেছে ২৪টি। তিনি বলেন, আমরা করোনাভাইরাসের কারনে সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা উদযাপন করবো। এছাড়া এবছর খরচ কমাতে প্রতিমা  ছোট ও ডেকোরেশন কমানো হয়েছে বলে তিনি জানান। তিনি বলেন, মুখে মাস্ক পরিধান ছাড়া কাউকে মন্ডপে ঢুকতে দেয়া হবেনা। তিনি জানান, প্রতিটি মন্ডপেই আমাদের স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী থাকবে। তিনি মন্ডপে কেউ যেন বিশৃংখলা সৃষ্টি করতে না পারে সেদিকে খেয়াল রাখার জন্য সংশি­ষ্টদের প্রতি আহবান জানান।
এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আনিসুর রহমান জানান, এ বছর জেলার পূজা মন্ডপের নিরাপত্তায় ৬শত পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করবে। এছাড়াও থাকবে একাধিক মোবাইল টিম। এর পাশাপাশি পুলিশ সদস্যরা সাদা পোশাকে বিভিন্ন পূজা মন্ডপে দায়িত্ব পালন করবেন। তিনি বলেন, পূজা মন্ডপসহ কোথাও কেউ বিশৃংখলার চেষ্টা করলে তা কঠোর হস্তে দমন করা হবে। তিনি স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা উদযাপন করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।
ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর। 

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com