সংবাদ শিরোনাম
নাছিমার সাথে দ্বন্দ্বে ৮ মাস না পেরোতেই বান্দরবান বদলী বিজয়নগরের ইউএনও আরাফাত নাসিরনগরে অগ্নিকান্ডে দুটি ঘর পুড়ে ভষ্মীভূত।। সাংসদের দুঃখ প্রকাশ ও আর্থিক সহায়তা প্রদানের আশ্বাস অনিয়ম দূর্নীতি প্রতিরোধে বিপুল ভোটে বিজয়ী নায়ার।। পৌরবাসীর নিরব ভোট বিপ্লব দ্বিতীয় বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হলেন আ’লীগ মনোনীত নায়ার কবির বাঞ্ছারামপুরে মাকে খুন করলেন মাদকাসক্ত মেয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরু ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সেফটিক টাঙ্কি বিস্ফোরণে দেয়াল ভেঙ্গে আহত- ৫।। এলাকায় আতঙ্কের সৃষ্টি।। ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি দিনশেষে রাত পোহালেই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভোট উৎসব।। শান্তি প্রতিষ্ঠাই হচ্ছে ভোটারদের লক্ষ্য ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জাতীয় বিজ্ঞান বিতর্ক উৎসব প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর নির্বাচনে কোন কেন্দ্রে চুরি-ছিনতাইকারী সন্ত্রাস চাঁদাবাজ ও অস্ত্রবাজকে ঢুকতে দেওয়া হবে না ; নায়ার-মামুন
আইনমন্ত্রীর পিএকে ঘুষ দিতে গিয়ে আটক ব্যক্তির শশুর বাড়ির আতিথেয়তা নিলেন কসবা উপজেলা চেয়ারম্যান

আইনমন্ত্রীর পিএকে ঘুষ দিতে গিয়ে আটক ব্যক্তির শশুর বাড়ির আতিথেয়তা নিলেন কসবা উপজেলা চেয়ারম্যান

স্টাফ রিপোর্টার//সময়নিউজবিডি 

সরকারি চাকুরি পাইয়ে দিতে আইনমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারি (পিএ) কে ঘুষ দিতে গিয়ে আটক আওয়ামী লীগ নেতা আমির হামজার শশুর বাড়ির আতিথেয়তা গ্রহণ করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রাশেদুল কায়সার ভূঁইয়া জীবন। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে। আমির হামজা মেহারি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। গত ১ জানুয়ারি তিনি মন্ত্রীর গুলশানের বাসভবনে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়। এ ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় তিনি এখন জেলহাজতে আছেন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আখাউড়ার ধরখার ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি জিল্লুর রহমানের ছেলে হাসিবুল হাসান কিশোরগঞ্জের আদালতের চাকরির জন্য আবেদন করেন। চাকরির জন্য তদবির করতে আমির হামজা গত ১ জানুয়ারি মন্ত্রীর ঢাকার গুলশানের কার্যালয়ে যান। এ সময় তিনি মন্ত্রীর পিএ শফিকুল ইসলাম সোহাগকে দুই লাখ টাকা সাধেন চাকরি পাইয়ে দেয়ার জন্য। পরে ওই ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়।
এদিকে গত ২২ জানুয়ারি শুক্রবার আমির হামজার শশুর উপজেলার পুরকুইল গ্রামের বাসিন্দা হাবিবুর রহমান চিশতির বাড়িতে যান কসবা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক মন্ত্রীর ঘনিষ্ঠজন অ্যাডভোকেট রাশেদুল কায়সার ভূঁইয়া জীবন। কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানের নামে মূলত ওই বাড়িতে খাওয়া-দাওয়ার আয়োজন করা হয়। এতে উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ বেশ কয়েকজন অংশ নেন। খাওয়া-দাওয়া শেষে আমির হামজাকে ছাড়িয়ে আনার জন্য উপজেলা চেয়ারম্যানকে অনুরোধ করে শশুর বাড়ির লোকজন। চেয়ারম্যান এ বিষয়ে তাঁদেরকে আশ্বস্তও করেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রাশেদুল কায়সার জীবনের সাথে কথা বলতে তার মোবাইল ফোনে বেশ কয়েকবার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর। 

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com