সংবাদ শিরোনাম
মা থাকার ঐশ্বর্যে সম্পদে সৌভাগ্যবান; আল আমীন শাহীন কমলগঞ্জে বিএমইটি বৃত্তি পরীক্ষা শুরু বিজয়নগরে বাসের ধাক্কায় এক বৃদ্ধ নিহত গণতন্ত্রের পথে নারী জাগরণের পথিকৃৎ; আবুল কালাম আজাদ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় র‍্যাবের অভিযানে তিন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার সম্প্রীতির বন্ধন; দূর্গোৎসবে শুভেচ্ছা উপহার হুইল চেয়ার পেলেন শারিরীক প্রতিবন্ধী হালিমা বেগম উচালিয়াপাড়া সার্বজনীন দুর্গাপূজা উদ্‌যাপন পরিষদ এর নারায়নী নমস্তুত দুর্গাপূজা এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ডস ২০২২ অর্জন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কুমারী পূজার মধ্যদিয়ে পালিত হলো দুর্গোৎসবের মহা অষ্টমী সরাইলে ১০ হাজার টাকার জন্য গৃহবধূ খুন! শাশুরী আটক ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের উপর হামলা মামলায় ১০ জনের কারাদণ্ড

ফলোআপঃ নাসিরনগরে হিলিপের কাজে চলছে হরিলুট, দেখার কেউ নেই

ফলোআপঃ নাসিরনগরে হিলিপের কাজে চলছে হরিলুট, দেখার কেউ নেই

Advertisements
স্টাফ রিপোর্টার//সময়নিউজবিডি
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে ভাঙ্গারী দোকান থেকে পুরাতন রড ও বিল্ডিং ভাঙ্গা পুরাতন পাথর আর মাটি দিয়ে চলছে রাস্তা নির্মান কাজ।এসব হরিলুট দেখার যেন কেউ নেই। এ বিষয়ে প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পরও টনক নড়েনি কর্তৃপক্ষের। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলা সদরে চেঙ্গামোড়া নামক স্থানে ভাঙ্গারী দোকান থেকে পুরাতন রড, পুরাতন বিল্ডিং ভাঙ্গা পাথরের শুড়কি আর গুচ্ছ গ্রামের মাটি দিয়ে চলছে হাওড় অঞ্চল উন্নয়ন প্রকল্পের (হিলিপের) প্রায় ৬৮ লক্ষ টাকা ব্যায়ে রাস্তা নির্মানের কাজ। নাসিরনগর সদরের বাসিন্দা আব্দুল গাফ্ফারের ছেলে মোঃ লিটন মিয়া এ কাজটি করছেন। লিটনের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ দীর্ঘদিনের। অনেকেই তাকে পান খাওড়া লিটন হিসেবে চিনে।
জানা গেছে, লিটন নানা অনিয়ম দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে স্থানীয় হিলিপ কর্মকর্তাদের কোনরূপ পাত্তা না দিয়ে তার নিজের খেয়াল খুশিমত কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ১ ঘটিকার সময় সরেজমিন উক্ত রাস্তা গিয়ে দেখা গেছে হাওড় অঞ্চল উন্নয়ন প্রকল্পের মোতালিব নামের এক কর্মকর্তা ও অফিস সহকারী সাইফুল ইসলামের উপস্থিতিতেও চলছে এমন কাজ। এ বিষয়ে তাদের বক্তব্য জানতে চাইলে ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজী হয়নি এ দুই কর্মকর্তা। জানা গেছে কখনো রাতের অন্ধকারে আবার কখনো অফিস বন্ধের দিনেও চালিয়ে যাচ্ছে কাজ। শুধু চেঙ্গামোড়া নয় ফান্দাউক ইউনিয়নের আতুকোড়া গ্রামের ভিতর ১ কোটি ২৮ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মিত বাস্তার অনিয়মের বিষয়ে ও রয়েছে গ্রামবাসী নানা অভিযোগ। চেঙ্গামোড়া, আতুকোড়া ছাড়াও গোয়ালনগর ইউনিয়নের আশানগর রাস্তা নির্মানে ও রয়েছে নানা অভিযোগ।
গতকাল সড়েজমিন চেঙ্গামোড়া রাস্তা পরিদর্শনে গিয়ে দেখা গেছে এমন চিত্র।তাছাড়াও ওই ঠিকাদার লিটনের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ ও ধর্ষণের চেষ্টা সহ ৫ টি মামলা আদালতে চলমান রয়েছে। একটি মামলা ২১ লক্ষ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেছে আদালত।
এ বিষয়ে জানতে চেয়ে উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার মোঃ রেজাউল ইসলামের মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন করলেও ফোন রিসিভ করেননি তিনি। লিটনের এমন অনিয়ম দূর্নীতির বিষয়ে হিলিপের নাসিরনগরের সমন্বয়কারী মোঃ জাকির হোসেনের সাথে দেখা করে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি এখানে অসহায়।
গত সোমবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সিরাজুল ইসলাম চেঙ্গামোড়া রাস্তা পরিদর্শনে আসলে তাকে পুরাতন রড, বিল্ডিং ভাঙ্গা পুরাতন পাথরের শুড়কি ও মাঠি দিয়ে কাজ করার কথা বললে তিনি বলেন, ঢালাইয়ের সময়তো আমি চিলাম না। পাথরের বিষয়ে বললে সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমি রাস্তার অন্য মাথায় আছি বলে ফোন কেটে দেন।
এ বিষয়ে নাসিরনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হালিমা আক্তারের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে এমন অনিয়ম ও দূর্নীতির কথা জানালে তিনি বলেন, আমি উপজেলা প্রকৌশলীর সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নেব।
ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com