সংবাদ শিরোনাম
বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ও সরকারি স্থাপনায় তাণ্ডব ঠেকাতে না পারায় আমি লজ্জিত; মোকতাদির চৌধুরী এমপি দুই শতাধিক অসহায় হতদরিদ্র ও কর্মহীন মানুষের মাঝে মোকতাদির চৌধুরী এমপি’র ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ হেফাজতের তাণ্ডব- ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আরো ৩ জন গ্রেফতার।। এ পর্যন্ত গ্রেফতার -৪৫৭ ভৈরবে র‍্যাবের পৃথক দুটি অভিযানে চার মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার  কমলগঞ্জ পৌরসভায় ইমাম মুয়াজ্জিনদের উৎসব ভাতা প্রদান পরপারে চলে গেলেন বিশিষ্ট ঠিকাদার ফিরোজ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতি তান্ডব পুলিশের এপিসিতে অগ্নিসংযোগের মূলহোতা জাকারিয়াসহ আরো ৭ জন গ্রেপ্তার আশুগঞ্জে দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করলো র‍্যাব ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতি তান্ডব পুলিশের এপিসিতে অগ্নিসংযোগের মূলহোতা জাকারিয়া গ্রেপ্তার কমলগঞ্জে ব্যবসায়ীর ধান নিয়ে ট্রাকসহ চালক উধাও
বাৎসরিক ওরস মোবারকের নামে চলছে মাদকদ্রব্য সেবন প্রতিযোগিতা

বাৎসরিক ওরস মোবারকের নামে চলছে মাদকদ্রব্য সেবন প্রতিযোগিতা

নাজমুল ইসলাম, নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি    

হবিগঞ্জ জেলা নবীগঞ্জ উপজেলার ২নং পূর্ব বড় ভাকৈর ইউনিয়নের হরিণগর গ্রামের খালিক শাহ এর মাজারের পাশে বসেছে গাঁজার আসর। গতকাল ২৯ জানুয়ারি ২০২০ বুধবার দিবাগত রাতে খালিক শাহ এর বার্ষিক ওরস মোবারক উপলক্ষে মাজার প্রাঙ্গণে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে অনেক ভক্ত ও সংস্কৃতিমনা ছোট বড় অনেক মানুষের সমাগম ঘটে এবং আসর জমিয়ে নেয় সমাজ ধংশকারী মাদকসেবিদের দল। ভিন্ন দলে বিভক্ত হয়ে ভিন্ন ভিন্ন স্থানে চলে প্রতিযোগিতা মূলক গাঁজা সেবন।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হরিণগর গ্রামের খালিক শাহ এর মাজারের পাশে একটি ঘর নির্মান করা হয় সেখানে প্রত্যেকদিন বিভিন্ন বয়সের লোক গাঁজাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য সম্মিলিতভাবে সেবন করেন।  মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার একটি জাতীয় সমস্যা। এর অপব্যবহারের শিকার হচ্ছে আমাদের যুব সমাজ। এর ভয়াবহ পরিণতি থেকে রক্ষা পাচ্ছেনা আমাদের শিশুরাও। এরকমই একটি ঘটনা ঘটে গত ২৮ জানুয়ারি কাজির গাঁও ওয়াজিদ শাহ (র) এর মাজার প্রাঙ্গণে। মাদকের হাত থেকে নিরাপদ নয় দেশের ছাত্র ও যুব সমাজ। একটি দেশের যুব সমাজ যদি মাদকের কাছে পরাজিত হয় তাহলে দেশের জন্য ডেকে আনে মারাত্মক পরিণতি।মাদক ধীরে ধীরে একটি সুশীল সমাজকে ধ্বংস  করে দিতে পারে। শিক্ষিত অশিক্ষিত ও বয়স্ক নির্বিশেষে সবাই মাদকের কাছে শিকার হতে পারে। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালেয়র অধীন একটি অধিদপ্তর। দেশে অবৈধ মাদকের প্রবাহ রোধ, ঔষধ ও অন্যান্য শিল্পে ব্যবহার্য বৈধ মাদকের শুল্ক আদায় সাপেক্ষে আমদানি, পরিবহন ও ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ, মাদকদ্রব্যের সঠিক পরীক্ষণ, মাদকাসক্তদের চিকিৎসা ও পুনর্বাসন নিশ্চিতকরণ, মাদকদ্রব্যের কুফল সম্পর্কে ব্যাপক গণসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে নিরোধ কার্যক্রমের পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন, জাতিসংঘসহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার সাথে নিবিড় কর্ম-সম্পর্ক তৈরির মাধ্যমে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর চেষ্টায় নিরলস ভাবে কাজ করে চলেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তের। তারপরও একটি চক্র সমাজকে ধংশ করতে উঠে পড়ে লেগেছে, সবচেয়ে বেশি ঝুকির সম্মুখিন হচ্ছে উঠতি বয়সের তরুনরা। স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গামী এসব তরুণরা ক্রমেই ঝুকে পড়ছে মাদকের দিকে। তাই প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন নবীগঞ্জ উপজেলার সুশীল সমাজ। এসব অসামাজিক কার্যকলাপে একালাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। হরিণগরের সাধারণ জনগণ এসব সমাজ বিরোধী কার্যকলাপ থেকে মুক্তি চায়।

ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।    

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com