সংবাদ শিরোনাম
বিজয়নগরে পত্তন ইউপি নির্বাচনে তাজু বনাম রতনের মধ্যে হবে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের কান্দিপাড়ায় আগুন।। লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি  পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১৯ টি ইউনিয়নে আ’লীগের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচন- বিজয়নগরে ১৯ চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যার কিশোরগঞ্জে র‍্যাবের অভিযানে ভারতীয় প্রসাধনীসহ তিন চোরাকারবারি আটক  ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় র‍্যাবের অভিযানে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় কাপড় ও কসমেটিকসহ এক চোরাচালানীকে আটক বিএনপি নেতার মৃত্যুতে হাসপাতালে ছুটে গেলেন আ’লীগ নেতাকর্মীরা ওমিক্রন বিষয়ে আপতত দেশে লকডাউনের পরিকল্পনা নেই; স্বাস্থ্যমন্ত্রী ভোটারদের ভোট চাইলেন পত্তন ৭নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী আবুল ফায়েজ মাওলানা আব্দুল ওহাব কাউয়ার গলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এস এম সি কমিটির সভাপতি নির্বাচিত
বিজয়নগরে কয়েকটি ভূমিহীন পরিবারকে সরকারি খাস ভূমি থেকে উচ্ছেদের অভিযোগ

বিজয়নগরে কয়েকটি ভূমিহীন পরিবারকে সরকারি খাস ভূমি থেকে উচ্ছেদের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার//সময়নিউজবিডি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার পত্তন এলাকায় কয়েকটি ভূমিহীন পরিবারকে সরকারি খাস খতিয়ানের জায়গা থেকে তাদের বসতঘর উচ্ছেদের অভিযোগ উঠেছে। এতে চরম বিপাকে পড়েছেন পরিবারগুলোর সদস্যরা। পরিবার পরিজন ও সন্তানদের নিয়ে মাথাগুজাতে দিশেরা ভোক্তভোগীরা।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের পত্তন গড়মোড়া নামক এলাকায় পত্তন মৌজার বিএস ৯২৭৫ নম্বর দাগ ও ৯২৬৮ নম্বর দাগের সরকারি খাস খতিয়ানের ১২৪ শতকরের মধ্যে ৩০ শতাংশ জায়গায় একই এলাকার পাঁচটি ভূমিহীন পরিবার মাটির কোটা ও টিনের ঘর তৈরি করে দীর্ঘ ৫০ বছর ধরে বসবাস করে আসছে।
ভূমিহীন পরিবারগুলো হচ্ছে হাজেরা বেগম (৬৫) স্বামী মৃত আব্দুল আহাদ, রাজু বেগম (৩৫) স্বামী দুলাল মিয়া, মুক্তা বেগম (২৮), স্বামী জামাল মিয়া, বিলকিছ বেগম (৩৫) বাবুল মিয়া ও শরীফ মিয়া (২৫) পিতা বাবুল মিয়া।
হাফেজা বেগম নামে ৬৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধা দীর্ঘ প্রায় ৫০ বছরের ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদের পর অনেকটা বাকরূদ্ধ হয়ে পড়েছেন। এ প্রতিবেদকের সাথে কথা বলতে গিয়ে কয়েকবার হাউমাউ করে কেঁদেছেন। তিনি জানান, তাদের নামে দেশের কোথাও কোন জায়গা জমি নেই। জায়গা জমি না থাকায় পত্তন মৌজার বিএস ৯২৭৫ দাগের সরকারি খাস খতিয়ানের এই জায়গাটিতে দীর্ঘ ৫০ বছর বসবাস করেছেন। জীবনের এ শেষ বেলায় এসে এক ভূমিহীনকে উচ্ছেদ করে অন্য ভূমিহীনদের সরকারি খাস খতিয়ানের এ জায়গা বরাদ্দ হয়ে গৃহনির্মাণ করে দিচ্ছেন সরকার। 

বৃদ্ধা হাফেজা বেগম আক্ষেপ করে বলেন, শুনেছি জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সারা দেশে ভূমিহীনদের সরকারি খাস খতিয়ানের জায়গা বরাদ্দ দিয়ে গৃহনির্মাণ করে দিচ্ছেন। তাহলে তাদেরকে কেন সরকারি জায়গা থেকে উচ্ছেদ করা হয়েছে। তিনি জানান, এ ইউনিয়নে আরো অনেক খাস জায়গা আছে। যেরদ জায়গা গুলো খালি পড়ে রয়েছে। তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে হাতজোড় করে আকুতি জানিয়েছেন তাকে যে জায়গাটি থেকে উচ্ছেদ করা হয়েছে সেটি পুনরায় ফেরত দিতে।

ভিডিও।

একই এলাকার আরেক ভূমিহীন বাবুল মিয়ার স্ত্রী বিলকিছ বেগম জানান, তাদেরকেও পত্তন মৌজার বিএস ৯২৭৫ দাগের সরকারি খাস খতিয়ানের এই জায়গাটি থেকে উচ্ছেদ করে অন্য ভূমিহীনদের এ ভূমি বরাদ্দ দিয়ে গৃহনির্মাণ করে দিচ্ছেন।  এ ব্যাপারে পত্তন ভূমি উপসহকারী  কর্মকর্তা (তহশিলদার) জাকির হোসেন জানান, পত্তন মৌজার ৯২৭৫ দাগের ১শত সরকারি খাস খতিয়ানের ১শ শতাংশ জমি থেকে ৩০ শতক জায়গা আমরা নিয়েছি। সেখানে একটি নতুন ঘর তুলাছিল। আমরা ঘরটি সরিয়ে সেখানে ৯টি ভূমিহীন পরিবারকে মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে ভূমিহীনদের গৃহনির্মাণ করে দেওয়া হচ্ছে। 
এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ মাহবুবুর রহমান জানান, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা যেখানে সরকারি খাস খতিয়ানের জায়গা পেয়েছি সেখান থেকেই ৩০ শতাংশ জায়গা আমরা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। তবে দীর্ঘদিন ধরে যারা এখানে বসবাস করছে তাদের কাউকে আমরা উচ্ছেদ করিনি। আমরা যে জায়গাটার মধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহারের গৃহনির্মাণ করছি সেখানের একটি খালি জায়গায় সম্প্রতি একজন নতুন ঘর নির্মাণ করেন। আমরা শুধু নির্মাণকৃত নতুন ঘরটি সরিয়েছি এবং যে ঘর নির্মাণ করেছিলো তাকে বলে আসছি ইউএনও স্যারের সাথে সাক্ষাৎ করে তার সমস্যার কথা বলতে।
ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com