সংবাদ শিরোনাম
আখাউড়ায় ভারতীয় নাগরিকের আত্মহত্যা গ্রামীন জনগোষ্ঠীর উন্নয়ন করতে পারলেই সরকার ও রাষ্ট্রের উন্নয়ন হবে; ইউএনও পঙ্কজ বড়ুয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনা ফ্রন্টলাইনারদের জন্য প্রথমধাপে আসছে ১২ হাজার টিকা মাছিহাতা ইউনিয়নে সিআইজি মৎস্য চাষির পুকুর পাড়ে মাঠ দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত নাসিরনগরে মানবাধিকারের ১১সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন।। আব্দুল হান্নান সভাপতি ও ভানু চন্দ্র দেব সম্পাদক ২০২১ সালে পুরো বছর আমরা মুজিববর্ষ পালন করবো ; মোকতাদির চৌধুরী এমপি ঢাকাপোস্টে যোগ দিলেন তরুণ সাংবাদিক সঞ্চয় নাসিরনগর চাতলপাড় ইউনিয়ন প্রবাসী আওয়ামী লীগের উদ্যােগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ নাসিরনগরে জিআর খাল খনন কর্মসূচির উদ্বোধন করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান রাফি উদ্দিন আহম্মেদ আইনমন্ত্রীর পিএকে ঘুষ দিতে গিয়ে আটক ব্যক্তির শশুর বাড়ির আতিথেয়তা নিলেন কসবা উপজেলা চেয়ারম্যান
যে বাদশাহর জীবনে কখনো তাহাজ্জুদের নামায ছোটেনি ; মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান

যে বাদশাহর জীবনে কখনো তাহাজ্জুদের নামায ছোটেনি ; মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান

দিল্লির তৎকালীন আল্লাহর খাস বান্দাহ ও বিশিষ্ট বুযুর্গ খাজা কুতুবুদ্দীন বখতিয়ার কাকী (রহঃ) যখন ইন্তেকাল করলেন তাঁর জানাযায় শরীক হওয়ার জন্য পঙ্গপালের মতো ছুটে এলো অসংখ্য মানুষ। বিশাল মাঠে জানাযার আয়োজন করা হলো, জনসমুদ্রে পরিণত হলো গোটা মাঠ, জানাযার সময় হলে একজন ঘোষক ঘোষণা করলেন , হযরত খাজা কুতুবউদ্দিন বখতিয়ার কাকী (রহঃ) ইন্তেকালের পূর্বে আমাকে ওসিয়ত করে গেছেন, যার মাঝে চারটি গুণাবলি  বিদ্যমান থাকবে অর্থাৎ যার মাঝে এই চারটি গুণ থাকবে তিনি যেন খাজা কুতুবউদ্দিন বখতিয়ার কাকী (রহঃ) এর জানাযা পড়ান।

চারটি গুণাবলি হলোঃ-(১) যার জীবনে কোনদিন তাকবীরে উলা (জামাতের প্রথম তাকবির) ছোটেনি,(২) যার কোনদিন তাহাজ্জুদ কাযা হয়নি অর্থাৎ বাদ যায়নি !(৩) যে কোনদিন গায়রে মাহরামের (পর নারীর) দিকে বদনজরে তাকাননি.!(৪) এমন ইবাদতগুযার, যার কোনদিন আসরের সুন্নতও ছোটেনি.!
একথা শোনার পর পুরো মাঠে নিরবতা ছেয়ে গেলো, সবাই নিস্তব্ধ! কে আছেন এমন.? এভাবেই কেটে গেলো বেশ কিছুক্ষণ, এরপর ভীড় ঠেলে কাঁদতে কাঁদতে বেরিয়ে এলেন একজন.! সবার দৃষ্টি তাঁর দিকে, ধীরে ধীরে জানাযার দিকে এগিয়ে এলেন.! লাশের মুখ থেকে চাদর সরিয়ে বললেন, কুতুবুদ্দীন! তুমি তো নিজে চলে গেলে কিন্তু আমাকেও অপদস্ত করে গেলে.! তারপর তিনি জনসম্মুখে আল্লাহ তা‘য়ালাকে সাক্ষী রেখে কসম খেয়ে বললেন, আমার মাঝে এই চারটি গুণ আছে.! জনতা বিস্ময়ে হতবাক হয়ে গেলো. আরে ! ইনি কে.? তিনি আর কেউ নয়, তিনি হলেন দিল্লির তৎকালীন বাদশাহ শামসুদ্দীন আল তামাশ (রহঃ).!
একজন বাদশাহ যদি নিজের সকল ব্যস্ততা সত্বেও এমন আবেদের জীবন যাপন করতে পারেন.!তাহলে আমরা যারা বিভিন্ন চাকরি বা ব্যবসা কিংবা অন্য কোন পেশায় নিয়োজিত, আমরা কি পারি না.? এভাবে নিজেকে ইবাদতে ব্যস্ত রাখতে.?হে আল্লাহ! আমাদের সবাইকে বেশী বেশী ইবাদত করার তাওফিক দান করুন। আমীন।

মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান,যুগ্ম সম্পাদকঃ ইসলামী ঐক্যজোট, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখা। 

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com