সংবাদ শিরোনাম
সাইলোর মতো খাদ্যভান্ডার ছিলো বলে আমরা করোনা ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের মতো সমস্যা গুলো অতিক্রম করতে পেরেছি; খাদ্য মন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে শেরপুরে বাড়ছে নদ-নদীর পানি তিস্তাপাড়ের ২ হাজার পরিবার পানিবন্দি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পৃথক স্থানে বজ্রপাতে দু’জন নিহত আশুগঞ্জে মাদক সেবন নিয়ে বাক-বিতন্ডার জেরে যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা পুলিশের উপর হিজড়াদের হামলা গ্রেফতার ৪ মাহিন্দ্র ট্রাক্টারের স্প্রিংয়ে গলা আটকে কৃষকের মৃত্যু বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক কাবাডি টুর্নামেন্টে টানা চতুর্থবার চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ মুজিব মুর‍্যালে শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে ইবি বঙ্গবন্ধু পরিষদের কার্যক্রম শুরু সরাইলে ভূমি ও গৃহের দাবীতে ভূমিহীনদের মানববন্ধন

কমলগঞ্জে চা-শ্রমিকের বসতঘর ভেঙ্গে ফেলায় বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন 

কমলগঞ্জে চা-শ্রমিকের বসতঘর ভেঙ্গে ফেলায় বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন 

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের মাধবপুর ইউনিয়নের শ্রীগোবিন্দপুর চা-বাগানের চাশ্রমিক শ্রীজনম ভর (৫৫) এর নির্মিত পাকা বসতঘর বাগানের ব্যবস্থাপক ভেঙ্গে দেয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকল ১১ টায় উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের বেসরকারি শ্রীগোবিন্দপুর চা-বাগানের পঞ্চায়েত কমিটির উদ্যোগে, চা শ্রমিক শ্রীজনম ভর এর নির্মিত পাকা ঘর ভেঙ্গে দেয়ার প্রতিবাদে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।মানববন্ধনে শ্রীগোবিন্দপুর চা-বাগানের পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি মিলন নায়েক, সাধারণ সম্পাদক বিমল দাশ পাইনকা, জাগরণ যুব ফোরামের সভাপতি- মোহন রবিদাস প্রমুখ বক্তারা বলেন চা-শ্রমিক শ্রীজনম ভর নির্মিত পাকা ঘর ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
জানা যায়, শ্রীগোবিন্দপুর চা-বাগানে চা-শ্রমিক শ্রীজনম ভর পঞ্চায়েত কমিটির মাধ্যমে বাগানের ব্যবস্থাপকের অনুমতি নিয়ে নিজস্ব অর্থে একটি পাকা ঘর নির্মাণ করেছিলেন।গত শনিবার সকাল ১০টায় চা-শ্রমিকরা সবাই কাজে যোগ দিলে চা-বাগান মালিকের নির্দেশে বাগান ব্যবস্থাপক শ্রীপুর এলাকার ভাড়াটে লোকজন নিয়ে শ্রমিকের নিজস্ব অর্থে নির্মিত পাকা ঘরটি ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেন। এ বিষয়ে নির্যাতিত চা-শ্রমিক শ্রীজনম ভর বলেন, চা-বাগান পঞ্চায়েত কমিটির সহযোগিতায় বাগানের ব্যবস্থাপক প্রশান্ত সরকারের কাছে মৌখিকভাবে আবেদন করে তার মৌখিক অনুমতি নিয়ে ধার দেনা করে প্রায় ২ লাখ টাকা ব্যয় করে ছোট এই পাকা ঘরটি নির্মাণ করেছিলেন। শনিবার সকালে সকল শ্রমিক কাজে যোগ দিলে সকাল ১০টায় অতর্কিতে শ্রীপুর গ্রামের ভাড়াটে লোকজন নিয়ে এসে ব্যবস্থাপক প্রশান্ত সরকার উপস্থিত থেকে ঘর ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিলেন।বাগান ব্যবস্থাপক প্রশান্ত সরকার বলেন, শ্রীজনম ভরকে ঘর নির্মাণের কোন মৌখিক অনুমতি দেওয়া হয়নি। শুক্রবার সন্ধ্যায় তার ঘরে গিয়ে আগাম বলা হয়েছে ঘর ভাঙ্গার বিষয়টি। তাছাড়া সেতো একানে একটি দোকান ঘর নির্মাণ করেছিল। বসতঘর হলেতো কিছু মানবিক বিষয় থাকে। চা বাগানে দোকান ঘর নির্মাণের কোন সুযোগ নেই।
ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com