সংবাদ শিরোনাম
কমলগঞ্জে ৮০০ শীতার্তদের শীতবস্ত্র দিলো হীড বাংলাদেশ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিজের খুশি মতো অফিসের কাঠ গাছ কাটলেন পানি বিজ্ঞান প্রকৌশলী বাঞ্ছারামপুরে ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা হাওয়া ভবনের তারেক দেশ থেকে চুরি করে হাওয়া হয়ে গেছে; আহমেদ হোসেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ উপ-নির্বাচন; খোঁজ মিলছেনা সাত্তারের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী আসিফের স্বদেশ-সাময়িকীর পাঠ উন্মোচন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত কমলগঞ্জে চলন্ত ট্রেনের নিচে ঝাপ দিয়ে তরুণীর আত্মহত্যা ভৈরবে বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার সাহিত্য মেলায় তিতাস-ই জীবন নাটক মঞ্চস্থ মাদকে আসক্ত হয়েই খালেদা জিয়ার পুত্র কোকো মারা গেছেন; আইনমন্ত্রী

বিজয়নগরে ৩৩৫ টি গৃহহীন পরিবার পেলেন দুই শতক জায়গাসহ পাকা ঘর।। শীঘ্রই শেষ হচ্ছে আরো ১৮৩ টি পাকা ঘর নির্মাণ কাজ 

বিজয়নগরে ৩৩৫ টি গৃহহীন পরিবার পেলেন দুই শতক জায়গাসহ পাকা ঘর।। শীঘ্রই শেষ হচ্ছে আরো ১৮৩ টি পাকা ঘর নির্মাণ কাজ 

Advertisements
স্টাফ রিপোর্টার//সময়নিউজবিডি
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে গৃহহীনদের জন্য ৩ ধাপে মোট ৫১৮টি ঘরের মধ্যে  ৩৩৫টি ঘর সম্পূর্ণ করে গৃহহীনদের বুঝিয়ে দিয়ে বাকি ১৮৩ টি ঘরের নির্মাণকাজ শেষের পথে।
তার মধ্যে সরকারি খাস জমিতে ৪৩০ টি ঘর ও জায়গার ব্যবস্থা এবং ৮৮ টি ঘরের জন্য উপজেলা প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় জমি ক্রয় পূর্বক ঘর নির্মাণের কাজ এগিয়ে চলছে। উপজেলার মধমধ্যে সবচেয়ে বড় প্রজেক্টি নির্মিত হচ্ছে পাহাড়পুর ইউনিয়নের বামুটিয়া গ্রামে ২৭ টি পরিবারের জন্য স্থায়ী আবাসন।
ইতিমধ্যে ১ ধাপে ১০০টি ঘর ও ২য় ধাপে ২০০টি ঘর ও ৩ ধাপে ৩৫ ঘর সম্পূর্ণ করে গৃহহীনদের মাঝে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।৩য় ধাপের বাকি ১৮৩ টি  ঘরের ইটের গাঁথুনি, প্লাস্টার, রঙিন টিনের চালা নির্মাণসহ অন্যান্য কাজ প্রায় শেষের দিকে।
১ম ধাপের  প্রতিটি ঘরের জন্য নির্মাণ ব্যয় হয়েছে ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা, ২য় ধাপের প্রতিটি ঘরের জন্য নির্মাণ ব্যয় হয়েছে ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা ও ৩য় ধাপের প্রতিটি ঘরের জন্য নির্মাণ ব্যয় হচ্ছে ২ লাখ ৫৯ হাজার ৫০০ টাকা করে।
উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে মোট তিন ধাপে উপজেলায় সর্বমোট ৫১৮টি ঘর নির্মাণ হচ্ছে। তিন ধাপে এই ঘর নির্মাণ হচ্ছে। দুই শতক জায়গাসহ ৩৩৫টি ঘর ৩৩৫ টি পরিবারকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।বাকি ১৮৩ টি ঘর ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নির্মাণকাজ শেষ হয়ে যাবে। এরপর উক্ত ঘর ও দুই শতাংশ জমির মালিকানা দলিলসহ গৃহহীনদের বুঝিয়ে দেওয়া হবে। এই সব ঘরে এক সাথে বারান্দা, টয়লেট ও রান্না করার ঘর আছে।
ভূমিহীন ও গৃহহীনদের ঘর নির্মাণের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে সভাপতি, সহকারী কমিশনার (ভূমি), উপজেলা প্রকৌশলী, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে সদস্য ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে সদস্য সচিব করে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। উক্ত কমিটি সুন্দর ভাবে ঘর নির্মাণ কাজের জন্য সার্বক্ষণিকভাবে ঘরের যাবতীয় বিষয় তদারকি করে যাচ্ছেন।
বিজয়নগর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শাহানুর জাহান জানান,উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয় স্যারের সার্বক্ষণিক সরেজমিন পরিদর্শনপূর্বক দিকনির্দেশনায় দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে গৃহহীনদের জন্য গৃহ নির্মাণ প্রকল্প।
বিজয়নগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ এইচ ইরফান উদ্দিন আহামেদ জানান, মুজিব বর্ষে মাননীয়  প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার প্রত্যেকটি মানুষকে দুই শতক জায়গাসহ ঘর নির্মাণের ব্যবস্থা করার উদ্যোগ মাঠ পর্যায়ে আমরা নিষ্ঠা ও সততার সাথে বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি। আশা করছি সম্পূর্ণ দেশের ন্যায় বিজয়নগরেও সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে গৃহহীনদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন ও অঙ্গীকার জমিসহ ঘর বিতরণ করতে পারব ইনশাআল্লাহ।
ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com
Translate »