সংবাদ শিরোনাম
বেইলি রোডের অগ্নিকান্ডে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার একই পরিবারের ৫ জন নিহত।। এলাকায় শোকের মাতম ছবিআকাঁর মাধ্যমে মনের কথা ও নিজ দেশকে অন্য ভাষার মানুষের কাছে তুলে ধরা যায়; উপ-পরিচালক রুহুল আমিন বিজয়নগরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক আহত।। আটক-৩৬ তিনটি পদে লোক নিচ্ছে হুয়াওয়ে সরাইলে সংঘবদ্ধ ৪জন ট্রান্সমিটার চোর চক্রের সদস্য আটক আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি কনিকাড়া নুরে মদিনা জামিয়া ময়দানে বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল একুশে ফেব্রুয়ারি শুধু একটি দিন নয়, এটি একটি আবেগ, একটি অনুভূতি: ওসি আসাদুল ইসলাম গোলাম মুস্তাফা আবৃত্তি পদক পেলেন কবি জয়দুল হোসেন আশুগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে এক ইটভাটাকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের ব্যাপক কর্মসৃচি গ্রহণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আবাসিক মাদ্রাসা ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আবাসিক মাদ্রাসা ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার//সময়নিউজবিডি
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এহসানউল্লাহ-(১৭) নামে এক আবাসিক মাদ্রাস ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মুরসালিন নামে এক সহপাঠীকে পুলিশ থানা নিয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার (২০ অক্টোবর) রাত ১১ টা ৩০ মিনিটে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে সে মারা যান। নিহত আহসানউল্লাহ জেলার নাসিরনগর উপজেলার গোয়ালনগর ইউনিয়নের আমতলী গ্রামের মৃত শরিয়ত উল্লাহর ছেলে। সে জেলা শহরের মধ্যপাড়ায় মারকাজুল আবরার আল ইসলামিয়া মাদ্রাসার আদব বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন।
এহসানউল্লাহর সহপাঠী মুরসালিন জানান, আহসানউল্লাহ ও আমি বৃহস্পতিবার রাতে দুটি সাইকেল নিয়ে বের হয়। পরে আমরা জেলা শহরের ফ্লাইওভারে সাইকেল চালাচ্ছিলাম। আহসানউল্লাহর সাইকেলটি সামনে ছিলো। কিছু সময় পর আমি এসে দেখি সে আশিক প্লাজার সামনে অচেতন অবস্থায় পড়ে রয়েছে। এ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
এ ব্যাপারে মারকাজুল আবরার আল ইসলামিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা শিব্বির আহমেদ জানান, আমাদের মাদ্রাসাটি আবাসিক। মাদ্রাসার ১২৫ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। সকাল ১০ টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত প্রতিদিন মাদ্রাসায় ক্লাস নেওয়া হয়। কিন্তু মুরসালিন ও আহসানউল্লাহ কাউকে কিছু না বলে মাদ্রাসা থেকে বের হয়ে যায়। পরে জানতে পারি আহসানউল্লাহ মারা গেছে। জেলা সদর হাসপাতালে তার মরদেহ পড়ে রয়েছে। খবর পেয়ে আমরা হাসপাতালে গিয়ে মরদেহটি দেখতে পায়।
এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর ১ নং পুলিশ ফাঁড়ির এসআই হুমায়ুন কবির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নিহত এহসান উল্লাহর সহপাঠী মুরসালিন মৃত্যুর বিষয়ে এলোমেলা কথা বলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে থানায় নিয়ে এসেছি। বিষয়টি রহস্যজনক হওয়ায় মরদেহের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর বিস্তারিত বলা যাবে।
ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com