সংবাদ শিরোনাম
কমলগঞ্জে ৪ মাসেও মাঠকর্মীরা ভাতার টাকা পায়নি।। ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ সোয়া দুই বছর পর চাতলাপুর অভিবাসন কেন্দ্র দিয়ে ভারত-বাংলাদেশ যাত্রী পারাপার শুরু কবি নজরুল সাহিত্য পদক পেলেন কথাসাহিত্যিক আমির হোসেন মহান মুক্তিযুদ্ধের পর পদ্মা সেতুর সফলতা জাতির জন্য এক গৌরবোজ্জ্বল অধ্যায়; আল মামুন সরকার ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার উদ্যোগে মশা নিধন কার্যক্রমের উদ্বোধন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‍্যালী কমলগঞ্জে ট্র্যাকিং ডিভাইস সহ লজ্জাবতী বানর অবমুক্ত করন কর্মসূচি কমলগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর ১০টি উদ্ভাবনী উদ্যোগ নিয়ে প্রশিক্ষণ কর্মশালা চিকিৎসা শেষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ফিরলেন আল-মামুন সরকার কমলগঞ্জে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ত্রাণ সমাগ্রী বিতরণ
রাখে আল্লাহ মারে কে?

রাখে আল্লাহ মারে কে?

স্টাফ রিপোর্টার//সময়নিউজবিডি 

প্রবাদ আছে -“রাখে আল্লাহ মারে কে? “, হায়াত ময়ুত ও রিজিক নির্ধারণ করেন মহান সৃষ্টিকর্তা। প্রচন্ড এই শীতে যেখানে প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষ ঘরের বাহির হতে কাবু হয়ে যায় সেখানে একটি সদ্যভূমিষ্ট শিশু সারারাত খোলা আকাশের নিচে থেকে কুয়াশায় ভিজে শীতল নিথর দেহের একটি নবজাতক শিশুকে বাঁচিয়ে রাখার মাধ্যমে সৃষ্টিকর্তা মানুষকে মনে করিয়ে দিলেন কেউ কাউকে মারতে পারেনা যদি আল্লাহ পাক সহায় থাকেন। সারারাত কুয়াশায় ভিজে পড়ে থাকা শিশুটির বেঁচে থাকার সক্ষমতায় কান্নার আওয়াজ এসে লাগলো স্থানীয় বাসিন্দাদের কানে, কিন্তু সেই আওয়াজটি পৌঁছাইনি শিশুটির গর্ভধারণী মা কিংবা আপনজনদের। যে কান্নার শব্দে স্থানীয়রা এগিয়ে যেতেই চোখে পড়লো খোলা আকাশের নিচে একটি কাপড়ে মোড়ানো এই নবজাতক শিশুকে। যা দেখে স্থানীয়রা মন্তব্য করেন ” রাখে আল্লাহ মারে কে?” হৃদয় বিদারক এ ঘটনাটি ঘটেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের।   

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৮টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের একটি বালুর মাঠ থেকে কুয়াশায় ভিজে থাকা এক নবজাতক শিশুকে উদ্ধার করেন পুলিশ।              

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোস্তফা কামাল শিশুটিকে বালুর মাঠ থেকে উদ্ধার করেন জানিয়ে আরো বলেন, জেলা শহরের একটি বালুর মাঠে শিশুটি পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে পৌঁছে নবজাতক শিশুকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন। তিনি জানান, কনকনে শীতে শিশুটি কুয়াশায় ভেজা ছিল। ধারণা করা হচ্ছে সোমবার কোন একসময় শিশুটি জন্ম হওয়ার পর রাতে বালুর মাঠে শিশুটিকে ফেলে রেখে গেছেন।     

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ শওকত হোসেন জানান, শিশুটির কিছু স্বাস্থ্য পরীক্ষানিরীক্ষার পর বলা যাবে তার শারীরিক অবস্থা। আমরা শিশুটিকে যত্নসহকারে চিকিৎসা করছি।     
ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।                          

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com