সংবাদ শিরোনাম
শারদীয় দূর্গোৎসব উপলক্ষ্যে ৪৯টি পূজামন্ডপে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার আর্থিক অনুদান বিতরণ যুবলীগ নেতা মহসিনের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার বিজয়নগরে বিশ্ব তথ্য অধিকার দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সরাইলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬ তম জন্মদিন পালিত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় র‍্যাবের অভিযানে গাঁজাসহ দুই মাদক কারবারি আটক ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন পালন করলো ছাত্রলীগ জাতীয় মহিলা সংস্থার উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর ৭৬তম জন্মবার্ষিকী পালিত কমলগঞ্জে যুবলীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন বিজয়নগরে শিক্ষার্থীর রহস্যজনক আত্মহত্যার ঘটনায় আদালতে মামলা।। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান সহপাঠীরা কমলগঞ্জে পুবালী ব্যাংক’র এটিএম বুথের উদ্বোধন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডিসির সভায় সিভিল সার্জন কার্যালয়ের স্যানিটারি ইন্সপেক্টরের ঘুম নিয়ে সমালোচনার ঝড়

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডিসির সভায় সিভিল সার্জন কার্যালয়ের স্যানিটারি ইন্সপেক্টরের ঘুম নিয়ে সমালোচনার ঝড়

Advertisements

বিশেষ প্রতিবেদক//সময়নিউজবিডি 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় বাজার ব্যবস্থাপনা ও সরকারি নীতির প্রয়োগ সম্পর্কিত মতবিনিময় সভায় নাক ডেকে ঘুমাতে দেখা গেছে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রতিনিধি স্যানিটারি ইন্সপেক্টর আব্দুল ওয়াহেদ (৫৫)। এ ঘটনায় জেলা জুড়ে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েছেন সিভিল সার্জন কার্যালয়ে কর্মরত এ কর্মকর্তা। ইতিমধ্যে ঐ কর্মকর্তার “ঘুমের” ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। 
মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত জেলায় বাজার ব্যবস্থাপনা ও সরকারি নীতির প্রয়োগ সম্পর্কিত মতবিনিময় সভায় এ ঘটনাটি ঘটেছে।
একটি সূত্র জানায়, গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসক হায়াত উদ-দৌলা খাঁন এর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোঃ খলিলুর রহমান। 
জেলার বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের প্রতিনিধিদের নিয়ে জেলায় বাজার ব্যবস্থাপনা ও সরকারি নীতির প্রয়োগ সম্পর্কিত মতবিনিময় সভা চলাকালীন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিভিল সার্জন কার্যালয়ের স্যানিটারী ইন্সপেক্টর আবদুল ওয়াহেদ চেয়ারে হ্যালেন দিয়ে ঘুমে বিভোর ছিলেন। যা উপস্থিত সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের প্রতিনিধিদের হতবাক করেন। এসময় কেউ কেউ ঐ কর্মকর্তার ঘুমের দৃশ্যটি মোবাইল ফোনের ক্যামেরায় বন্দী করেন। যা পরবর্তী সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দেয়। এতে বিভিন্ন ব্যক্তি প্রতিষ্ঠান নানান রকম বিরূপ সমালোচনা করে মন্তব্য করেন। যা সিভিল সার্জন কার্যালয়েরও সুখ্যাতিতে আঘাক করেছে বলে মনে করেন কেউ কেউ। এমনকি খুদ সিভিল সার্জন কার্যালয়ের একাধিক কর্মকর্তাও বিষয়টি নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করে এ প্রতিবেদককে বলেন, ননসেন্স লোকদের জন্য আজ পুরো অফিসের কলঙ্ক হয়েছে। জেলার সর্বোচ্চ সরকারি দপ্তরের একটি সভায় একটি প্রকিষ্ঠানের প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত হয়ে এমন অচেতন অবস্থায় কাণ্ডজ্ঞানহীন কাজ করলে আল্টিমেটলি এটা প্রতিষ্টানেরই স্বনাম ক্ষুন্ন করা হয়। 
এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের ঐ স্যানিটারি ইন্সপেক্টর আবদুল ওয়াহেদ এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তিনি খুবই অসুস্থ ছিলেন। ঐ মতবিনিময় সভায় উপস্থিত হওয়ার আগে তিনি নিজ কার্যালয়ে আরো দুটি মিটিং করে অনেকটাই ক্লান্ত ছিলেন। যে কারেন তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। তিনি আরো বলেন, তার বয়স হয়েছে, নিজ কার্যালয়ে দুটি মিটিং করে আবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বিকেল ৪টা থেকে সন্ধ্যা পৌনে ৬টা পর্যন্ত সভা হওয়ায় কখন তিনি ঘুমিয়ে পড়েন তাও বলতে পারেননি। তবে তিনি ঐ সভায় নিজের মতামত জানিয়ে বক্তব্য রেখেছেন বলেও জানান।   

ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।      

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com