সংবাদ শিরোনাম
পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‍্যালী কমলগঞ্জে ট্র্যাকিং ডিভাইস সহ লজ্জাবতী বানর অবমুক্ত করন কর্মসূচি কমলগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর ১০টি উদ্ভাবনী উদ্যোগ নিয়ে প্রশিক্ষণ কর্মশালা চিকিৎসা শেষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ফিরলেন আল-মামুন সরকার কমলগঞ্জে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ত্রাণ সমাগ্রী বিতরণ আমরাই সরাইলের আ’লীগ, আমরা ছিলাম, আমরাই আছি ; প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে বক্তারা বিজয়নগরে বন্যার পরিস্থিতি অবনতি।। প্রশাসনের সতর্ক অবস্থান ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার সার্বিক উন্নয়ন ও সমস্যা সমাধানে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন; পৌর মেয়র নায়ার কবির বিজয়নগর উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি’র জরুরী সভা অনুষ্ঠিত সরাইলে পশুর হাটে হাঁটু পানি।। বিপাকে ক্রেতা-বিক্রেতা।। লোকসানে ইজারাদার
রামগড়ে করোনাকালিন জনসেবায় কাজী রিপন এর ভূমিকা অবিস্বরণীয়

রামগড়ে করোনাকালিন জনসেবায় কাজী রিপন এর ভূমিকা অবিস্বরণীয়

এমদাদ খান //রামগড় (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি 

করোনাকালীন জনসেবায় রামগড় মেয়র  শাহজাহান কাজী রিপন এর ভূমিকা অবিস্বরণীয়। তিনি রামগড় পৌরসভার মেয়র  বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন কর্মী। করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এর মহামারিতে যখন অসহায় হয়ে পড়েছে সারা বিশ্ব ঠিক তারই ধারাবাহিকতায় যখন বাংলাদেশেও এর প্রভাব বিস্তার করতে শুরু করলো তখন থেকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নিজের জীবনের মায়া না করে এখনো পর্যন্ত রামগড়বাসির সেবায় প্রতিনিয়ত ছুটে চলেছেন রামগড় পৌরসভার মেয়র শাহজাহান কাজি রিপন । তিনি এমন একজন জনপ্রতিনিধি যিনি জনগণের কথা চিন্তা করে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই ছুটে চলেছেন রামগড় পৌরসভার ৯ টি ওয়ার্ডে। করোনাকালীন সময়ে তিনি ছিটিয়েছেন জীবানুনাশক স্পে, এবং তিনি সার্বক্ষণিক করোনা থেকে রামগড় পৌরবাসিকে বাঁচাতে নিয়েছেন জনসচেতনতা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাসহ নানান কর্মসূচী।  

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে,   জনসচেতনতা মূলক মাইকিং এবং ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌছে দিচ্ছেন তিনি। করোনা প্রতিরোধে জনসাধারণ যাতে ঘরে থাকে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে কর্মহীন দরিদ্র পরিবারের মাঝে বাড়িয়ে দিয়েছেন সহযোগীতার হাত। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কারিগর জননেত্রী শেখ হাসিনার উপহার সামগ্রী সহ সরকারী ত্রাণ সামগ্রী এবং তার নিজস্ব অর্থায়নের খাবার বিলিয়েছেন অকাতরে, বিতরণ করেছেন নগদ অর্থও।
রামগড়ের বিভিন্ন পৌর এলাকা ঘুরে মানুষদের সাথে কথা বললে তারা সাংবাদিককে বলেন, পৌর মেয়র কাজি রিপন এই জনসেবামূলক কর্মকান্ড এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। আমরা তারই এই মহানুভবতা কখনো ভূলবনা। করোনার এই মহামারিতে আমাদের মেয়র সাহেব যেভাবে দিনরাত জনগণের পাশে ছিলেন তা আমরা কখনো ভুলবনা। তিনি না থাকলে হয়তো” অনেকেই না খেয়ে থাকতো।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে কালাডেবা, তৈছালা, বল্টুরাম, এলাকার অনেকেই বলেছেন মেয়রের সাথে আমাদের দলীয় মতাদর্শের পার্থক্য থাকতে পারে কিন্তু সত্যিকার অর্থে এই মহামারিতে তিনি যেভাবে কাজ করেছেন তা প্রশংশনীয়। আর এই পরিস্থিতিতে মেয়র কাজি রিপন সরকারি ত্রাণ সামগ্রী সুষ্ঠুভাবে বন্টন করেছেন এবং তার নিজস্ব অর্থায়ন থেকে হাজার হাজার মানুষকে সহযোগীতা করেছেন।সরেজমিনে গিয়ে একাধিক দলীয় কর্মীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, আমরা  কাজি রিপন ভাইয়ের গ্রুপ করিনা কিন্তু করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তাঁর মহানুভবতার কাছে আমরা হেরে গেছি। দিন থেকে রাত অবদি তিনি পৌরবাসীর জন্য যে শ্রম দিয়েছেন তা সত্যিই বিরল। রামগড়  আওয়ামীলীগের আরেক নেতা বলেন কাজি রিপন মেধা ও শ্রম দিয়ে রামগড়ের জনগনের সেবা ও রাজনীতি করেই আজ এপর্যন্ত এসেছেন। তিনি একজন পরিশ্রমী রাজনিতিবীদ। তিনি কখনো অন্যায়কে প্রশ্রয় দেননি বলে সবসময় আলোচনা-সমালোচনায় ভেসেছেন।
একটি কথা না বললেই নয়, করোনা ভাইরাস সংক্রমণের শুরু থেকে অর্থাৎ গত ২৩ মার্চ থেকে শুরু হওয়া রামগড় মেয়রের ভালবাসার উপহার প্রদান কার্যক্রম এখনও চলমান রয়েছে।
এ ব্যপারে রামগড় পৌর মেয়র সাংবাদিককে বলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে হৃদয়ে ধারণ করে রাজনীতি করি। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ক্ষুদ্র একজন সৈনিক এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার একজন কর্মী। আর এই আদর্শই হলো দুঃসময়ে জনগণের পাশে থাকা। রামগড়বাসীর ভোটে আমি মেয়র নির্বাচিত হয়েছি তাই ওদের পাশে থাকাটা আমার একান্ত নৈতিক দায়িত্ব। আর আমি মনে করি যারা রাজনীতি করেন, প্রত্যেকরই এই দায়িত্ববোধ থাকা উচিৎ। তিনি দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়ে বলেন, আজীবন যেন জনসেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখতে পারি।

ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।    

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com