সংবাদ শিরোনাম
বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ও সরকারি স্থাপনায় তাণ্ডব ঠেকাতে না পারায় আমি লজ্জিত; মোকতাদির চৌধুরী এমপি দুই শতাধিক অসহায় হতদরিদ্র ও কর্মহীন মানুষের মাঝে মোকতাদির চৌধুরী এমপি’র ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ হেফাজতের তাণ্ডব- ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আরো ৩ জন গ্রেফতার।। এ পর্যন্ত গ্রেফতার -৪৫৭ ভৈরবে র‍্যাবের পৃথক দুটি অভিযানে চার মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার  কমলগঞ্জ পৌরসভায় ইমাম মুয়াজ্জিনদের উৎসব ভাতা প্রদান পরপারে চলে গেলেন বিশিষ্ট ঠিকাদার ফিরোজ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতি তান্ডব পুলিশের এপিসিতে অগ্নিসংযোগের মূলহোতা জাকারিয়াসহ আরো ৭ জন গ্রেপ্তার আশুগঞ্জে দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করলো র‍্যাব ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতি তান্ডব পুলিশের এপিসিতে অগ্নিসংযোগের মূলহোতা জাকারিয়া গ্রেপ্তার কমলগঞ্জে ব্যবসায়ীর ধান নিয়ে ট্রাকসহ চালক উধাও
জেল থেকে বের হয়েই ফের রমরমা মাদক ব্যবসায় মাদক সম্রাট আনার

জেল থেকে বের হয়েই ফের রমরমা মাদক ব্যবসায় মাদক সম্রাট আনার

স্টাফ রিপোর্টার//সময়নিউজবিডি 

জেল থেকে বের হয়েই ফের রমরমা মাদক ব্যবসা শুরু করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের শিমরাইলকান্দি এলাকার বাসিন্দা মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে মাদক সম্রাট শেখ মোঃ আনার। এতে করে আবারো মাদকসেবিদের যাতায়াত শুরু হয়েছে শিমরাইলকান্দি এলাকায়। আইনের ফাঁকফোকরে যতবারই পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করছেন ততবারই অল্প সময়ের ব্যবধানে আইনের ফাঁকফোকরে জামিনে বেরিয়ে আসেন মাদক সম্রাট শেখ মোঃ আনার হোসেন। তার নামে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা সহ বিভিন্ন থানায় একাধিক মাদক মামলা রয়েছে। 
মাদক সম্রাট শেখ মোঃ আনার এর বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার মামলা নং- ১২, তারিখ ৬ সেপ্টেম্বর ২০০৩ ইং,    মামলা নং-৪০, তারিখ -১৩/০৬/২০১৯ ইং। এ মামলার এজাহারে মাদক সম্রাট শেখ মোঃ আনারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় দায়েরকৃত আরো ৪ টি মামলার বিবরণ সংযুক্ত করা হয়। যা সদর মডেল থানার রেকর্ডপত্র ও সিডিএমএস যাচাই করিয়া দেখা যায় আনারের নামে মামলা নং -৭১/৭১, তারিখ ২৯ জুন ২০১৯ ইং, মামলা নং- ৫৩ তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৫ ইং, মামলা নং – ৭/৩৬৪ তারিখ ০২ জুন ২০১৮ ইং ও মামলা নং- ৩৫ তারিখ ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫ ইং। উপরোক্ত মামলাগুলো বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন আছে।

সম্প্রতি গত ১৯ জুন ২০২০ ইং তারিখে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশ মাদক মামলার পলাতক আসামি হিসেবে গ্রেপ্তার করেন আনারকে। পরে তাকে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করেন। তাকে গ্রেপ্তারের খবর শুনে এলাকার সর্বস্তরের মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছিল।      

এদিকে গত কয়েকদিন আগে জামিনে জেল থেকে ছাড়া পেয়ে আবারো মাদক ব্যবসা শুরু করেছেন মাদক সম্রাট শেখ মোঃ আনার। এতে এলাকার সচেতন মহল ও অভিভাবকরা আবারো উদ্বেগ উৎকণ্ঠায় পড়েছেন। কারন উঠতি বয়সী যুবকরা মাদকাসক্ত হয়ে পড়াশোনা ও পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছেন। আনারের মাদক ব্যবসা বন্ধ করা না গেলে যুব সমাজ দিনেদিনে খারাপের দিকে ধাবিত হবে বলে শঙ্কায় আছেন অভিভাবকরা। 
মাদক ব্যবসায়ীদের বেপরোয়া চলাফেরা ও অবৈধ টাকার প্রভাবে জেলার বিভিন্ন স্থানে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটছে। সম্প্রতি এক মাদক ব্যবসায়ীর ছুরিকাঘাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) আমির হোসেন খুন হয়েছে। একই ঘটনায় মনি শঙ্কর চাকমা নামে আরেক এএসআই আহত হন। এলাকাবাসীর প্রশ্ন কতটা বেপরোয়া হলে এক পুলিশ কর্মকর্তাকে ছুরিকাঘাত করতে পারে? সেখানে এসব মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে সাধারন মানুষ কতটা অসহায়।  
মাদক সম্রাট শেখ মোঃ আনার এর মাদক কেনাবেচা বন্ধ করতে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী। 
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মোহাম্মদ শাহজাহান জানান, মাদক নির্মূলে মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশের নিয়মিত অভিযান অব্যাহত আছে। আনারকে কয়েকবার মাদকসহ পুলিশ আটকও করেছে। পূনরায় সে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত হলে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে।           

ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com