সংবাদ শিরোনাম
ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশন সংস্কার ও সকল ট্রেনের যাত্রা বিরতির দাবিতে নাগরিক ফোরামের ১৫ দিনের আল্টিমেটাম আগামীকাল হেফাজতের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত রেল স্টেশন পুনঃসংস্কার করে ট্রেনের যাত্রা বিরতির দাবীতে মানববন্ধন  আগামী ৪ অক্টোবর জেলা শ্রমিকলীগের বার্ষিক সাধারণ সভা ষড়যন্ত্রে একবার জাতিরপিতাকে হারিয়েছি, আর ষড়যন্ত্র করতে দেব না ; আইনমন্ত্রী আনিসুল হক  সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচিত সরকারের অধীনেই নির্বাচন হবে ; ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান  ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদক মামলায় তিন ভাইকে গ্রেপ্তার  ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিপুল পরিমাণ ফেনসিডিলসহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার  ১০ কেজি করে চাল পেলো কমলগঞ্জে ২ হাজার পরিবার আখাউড়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের মৃত্যু  সরাইলে আইনশৃংখলা কমিটির সভা অনুষ্টিত।। বিদ্যুতের লোডশেডিং নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ 
৬ টি সেলাই ও ২৪ ঘন্টা বিশ্রামে সাড়ে ১৪ হাজার টাকা বিল ধরিয়ে দিলেন দি ডাচ্-বাংলা ডায়াগনস্টিক সেন্টার এন্ড হসপিটাল

৬ টি সেলাই ও ২৪ ঘন্টা বিশ্রামে সাড়ে ১৪ হাজার টাকা বিল ধরিয়ে দিলেন দি ডাচ্-বাংলা ডায়াগনস্টিক সেন্টার এন্ড হসপিটাল

স্টাফ রিপোর্টার//সময়নিউজবিডি 

৬ টি সেলাই ও ২৪ ঘন্টা সাধারন বেডে বিশ্রামের জন্য সাড়ে ১৪ হাজার টাকা বিল ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে একটি বেসরকারি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে।  
মঙ্গলবার (০৪ আগস্ট) ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের পুরাতন জেলরোডস্থ দি ডাচ্-বাংলা ডায়াগনস্টিক সেন্টার এন্ড হসপিটালে এ ঘটনাটি ঘটেছে।
জানা গেছে, গত ৩ আগস্ট উপর থেকে পড়ে গিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর শহরের কাজীপাড়ার বাসিন্দা মুক্তা বেগম (৪৫) নামে এক বিধবা দরিদ্র নারী চিকিৎসা নিতে জেলা শহরের পুরাতন জেলরোডস্থ দি ডাচ্-বাংলা ডায়াগনস্টিক সেন্টার এন্ড হসপিটালে যান। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক জিনান রেজার তত্বাবধানে চিকিৎসা সেবা নেন মুক্তা বেগম। পরে ডাঃ জিনান রেজা মুক্তা বেগমকে (রোগীকে) চারটি পরীক্ষা করার পরামর্শ দেন। যে পরীক্ষাগুলো করাতে ঐ বিধবা নারীরা ১৮শত টাকা বিল পরিশোধ করতে হয়েছে।  

চিকিৎসা নিতে যাওয়ার পর ডাঃ জিনান রেজা চারটি পরীক্ষার পরামর্শ।

এদিকে গত ০৩.০৮.২০২০ ইং থেকে ০৪.০৮.২০২০ ইং পর্যন্ত ডাঃ জিনান রেজার তত্বাবধানে চিকিৎসা নেন মুক্তা বেগম। পরে ২৪ ঘন্টা ঐ হাসপাতালটিতে একটি নরমাল বেডে চিকিৎসা শেষে বাড়িতে চলে যাওয়ার জন্য ছাড়পত্র দেন চিকিৎসক। আর ২৪ ঘন্টা একটি সাধারণ ওয়ার্ডের ২০১/৪ নম্বর বেডে চিকিৎসা শেষে রোগীর স্বজনদের হাতে ঔষধ ছাড়াই সাড়ে ১৪ হাজার টাকা বিল ধরিয়ে দিয়েছেন দি ডাচ্-বাংলা ডায়াগনস্টিক সেন্টার এন্ড হসপিটাল নামে ঐ বেসরকারি হাসপাতালটির কর্তৃপক্ষ। আর ঔষধের বিল গুণতে হয়েছে সাড়ে ৪ হাজার টাকা। যা একজন হতদরিদ্র বিধবা নারীর জন্য মরার উপর খরার ঘাঁ এর মতো। 

চিকিৎসা শেষে রোগীকে দেওয়া ছাড়পত্র।

এ বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে Mynul Hossain Chapl এক ব্যক্তি তার নিজ ফেসবুক আইডি থেকে Wisforbetterbrahmanbaria নামে একটি ফেসবুক গ্রুপে একটি স্ট্যাটাস পোস্ট করেন। সেখানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ব্যবহারকারী অনেকেই জেলা শহরের মধ্যে অবস্থিত এ বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে নিয়ে সমালোচনা করে কেউ কেউ বলেছেন এসব হাসপাতাল ও হাসপাতালে থাকা চিকিৎসকরা কসাইখানা খুলে বসেছে। রোগী গেলেই এসব আজগুবি বিল ধরিয়ে দিয়ে রাতারাতি আঙুল ফুলে কলাগাছ বনে যাচ্ছেন। 

চারটি পরীক্ষা করানো বাবদ বিল ১৮ শত টাকা।

এ ব্যাপারে দি ডাচ্-বাংলা ডায়াগনস্টিক সেন্টার এন্ড হসপিটাল এর চেয়ারম্যান খলিল বশির মানিক এর কাছে জানতে চাইলে তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, বিষয়ট তিনি অবগত নন। জেনে বিস্তারিত জানাতে পারবেন। 
ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।                                                                                                           

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com