সংবাদ শিরোনাম
পাটগ্রামে রাসেলস ভাইপার সাপ সন্দেহে মেরে ফেলা হলো দুইটি সাপকে সাইলোর মতো খাদ্যভান্ডার ছিলো বলে আমরা করোনা ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের মতো সমস্যা গুলো অতিক্রম করতে পেরেছি; খাদ্য মন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে শেরপুরে বাড়ছে নদ-নদীর পানি তিস্তাপাড়ের ২ হাজার পরিবার পানিবন্দি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পৃথক স্থানে বজ্রপাতে দু’জন নিহত আশুগঞ্জে মাদক সেবন নিয়ে বাক-বিতন্ডার জেরে যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা পুলিশের উপর হিজড়াদের হামলা গ্রেফতার ৪ মাহিন্দ্র ট্রাক্টারের স্প্রিংয়ে গলা আটকে কৃষকের মৃত্যু বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক কাবাডি টুর্নামেন্টে টানা চতুর্থবার চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ মুজিব মুর‍্যালে শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে ইবি বঙ্গবন্ধু পরিষদের কার্যক্রম শুরু

আখাউড়ায় দেড় বছরের শিশুকে অপহরণ করে টাকা দাবি

আখাউড়ায় দেড় বছরের শিশুকে অপহরণ করে টাকা দাবি

স্টাফ রিপোর্টার//সময়নিউজবিডি 
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় দেড় বছর বয়সী শিশু শিফাত মোল্লাকে অপহরণ করে তার পিতা-মাতার কাছে মোবাইল ফোনে টাকা দাবি করেছে মোঃ  ফারুক নামে এক অপহরণকারী। বিষয়ে কাউকে জানালে শিফাতকে মেরে ফেলারও হুমকি দেয়া হয়। গত রোববার দুপুরে ফারুক ও তার স্ত্রী শিফাতকে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

আখাউড়া পৌর এলাকার দেবগ্রামের শিব বাড়ি সংলগ্ন খলিলুর রহমানের বাড়িতে ভাড়া থাকে শিফাতের পরিবার। বাবা শিপন মোল্লা রাজমিস্ত্রী, মা লাকী বেগম গৃহিনী। তাদের সাথে একই বাড়িতে পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকে মোঃ ফারুক ।
গত রোববার দুপুরে ফারুক ও তার স্ত্রী শিফাতকে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে শিফাতকে ফেরত দেয়ার কথা বলে মোবাইল ফোনে পঁাচ হাজার টাকা দাবি করে ফারুক। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগও করা হয়েছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দুই বোন এক ভাইয়ের মধ্যে শিফাত সবার ছোট। বাবা শিপন মোল্লা রাজমিস্ত্রী, মা লাকী বেগম গৃহিনী।
একই বাড়ির অপর ভাড়াটিয়া ফারুক ও তার স্ত্রী প্রায় ছয়-সাত মাস ধরে এখানে ভাড়া থাকেন। ফারুক শ্রমিকের কাজ করে। গত রোববার দুপুরে ফারুকের স্ত্রী রূপা বেগম বেশ কিছু সময় শিফাতকে কোলে নিয়ে রাখে। এরই মধ্যে সুযোগ বুঝে ফারুক ও তার স্ত্রী সটকে পড়ে। কিছুক্ষণ পর তাদেরকে না পেয়ে সন্দেহ হয় শিফাতের পরিবারের। ঘরে গিয়ে দেখে দু’টি মোবাইল ফোন সেটও নেই। পরে বিষয়টি পুলিশ ও স্থানীয়দেরকে অবহিত করা হয়।
শিফাতের মা লাকী বেগম  জানান, ছেলেকে নিয়ে যাওয়ার কয়েকঘন্টা পর ফারুক মোবাইল ফোনে পঁাচ হাজার টাকা দাবি করে। এ সময় তিনি ফোনের অপর প্রান্তে ছেলের আব্বু আম্মু ডাক শুনতে পান। ফারুক তখন জানায়, যদি এসব বিষয় কাউকে জানানো হয় তাহলে শিফাতকে মেরে ফেলা হবে। 
বাড়ির মালিক খলিলুর রহমান জানান, ফারুক তার বাড়ি নোয়াখালীর সোনাইমুড়ি বলে জানিয়েছে। সে প্রায়ই নেশা করতো। টাকার জন্যই সে ওই শিশুটিকে অপহরণ করেছে। পুলিশের পরামর্শে তার কথা অনুযায়ি সোনাইমুড়ির একটি দোকানের নম্বরে বিকাশে টাকা পাঠানো হয়। কিন্তু আটকানোর পরিকল্পনার কথা বুঝতে পেরে ফারুক শেষ পর্যন্ত ওই দোকানে যায় নি। 
এ ব্যাপারে আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ রসুল আহমেদ নিজামী জানান, অপহরকারিদের অবস্থান সম্পর্কে অনেকটা 
নিশ্চিত হওয়া গেছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। আশা করছি শিশুটিকে উদ্ধার করা যাবে।    
ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর। 

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com