সংবাদ শিরোনাম
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানশফিকুল আলমের মুক্তিযোদ্ধা সনদ ও গেজেট বাতিল পৌর এলাকার উন্নয়ন ও নাগরিক সুবিধার জন্য পৌর পরিষদ কাজ করে যাচ্ছে ; পৌর মেয়র নায়ার কবির মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, সাবেক উপমন্ত্রী আলহাজ্ব অ্যাড. হুমায়ুন কবির এর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও মিলাদ অনুষ্ঠিত বরেণ্য রাজনীতিবিদ এড. হুমায়ূন কবীর’র প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত বিজয়নগরে কৃষক প্রশিক্ষণ কর্মসূচির উদ্বোধন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সাংবাদিক ইউনিয়ন’র আহবায়ক কমিটি গঠিত র‍্যাবের অভিযানে হত্যা মামলার আসামী গ্রেপ্তার জননেত্রী শেখ হাসিনার শাসনামলে সকল ধর্মের মানুষ নিরাপদ; পৌর মেয়র নায়ার কবির মহামারি পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজার সব কার্যক্রম পরিচালনার আহবান জানিয়েছেন পৌর মেয়র নায়ার কবির চম্পকনগরে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে মোকতাদির চৌধুরী এমপির পক্ষ থেকে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান
বিজয়নগরে দৃষ্টিনন্দন বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল স্থাপন

বিজয়নগরে দৃষ্টিনন্দন বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল স্থাপন

জহিরুল আলম চৌধুরী(টিপু)//সময়নিউজবিডি    

হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙ্গালী, মহান স্বাধীনতার স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম রয়েছে এদেশের লাখো কোটি মানুষের হৃদয়ে। এবার তার অমর স্মৃতির উদ্দেশ্যে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালটি শিল্পরূপ পেয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলায়।

উপজেলা চত্ত্বরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি মহোদয়ের নির্দেশনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মেহের নিগার এর উদ্যোগে নির্মিত এ ম্যুরালটির উচ্চতা ১৫ ফুট প্রস্থ ৮ ফুট। উপজেলা প্রশাসনিক ভবনের সামনে চতুুুর্রভূজ আকৃতিতে স্থাপিত এ ম্যুরালটিতে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে জনগণের অভিবাদন গ্রহণকারী জননেতা বঙ্গবন্ধুকে।

গত শোকাবহ মাস আগস্টে শুরুতে এ ম্যুরালের নিমার্ণ কাজ শুরু হয়ে মাস ব্যাপী চলে এর নির্মাণ কাজ। বর্তমানে ম্যুরালটির চুনকার্যের কাজ বাকী রয়েছে। চলতি বছর শেষে  স্বাগত বছরেই শুরু হবে মুজিব বর্ষ। আর মুজিব বর্ষকে সামনে রেখেই বিজয়নগরে প্রথম নির্মিত হল বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, উপজেলায় প্রবেশ পথ থেকেই দৃষ্টি কাড়ে ম্যুরালটি। মেইন ফটক থেকে খুবই সুন্দর দেখায় দাঁড়িয়ে থাকা দৃষ্টিনন্দিত বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত নির্মিত ম্যুরালটি।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী অফিসার  (ইউএনও) মেহের নিগার বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার নির্দেশে দেশে এসেছে মহান স্বাধীনতার ঘোষণাও। তিনি মুক্তিযুদ্ধের মহানায়ক। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিধন্য এ উপজেলাতে নেই জাতির জনকের কোনো ম্যুরাল। তাই বঙ্গবন্ধুর স্মৃতির প্রতি সম্মান জানাতে এ উপজেলায় একটি ম্যুরাল স্থাপন করা হয়েছে। যে ম্যুরালটি উপজেলায় আগত সর্বস্থরের মানুষের নজরে আসবে আর শিশু কিশোরদের মনে জাগ্রত হবে বঙ্গবন্ধু প্রতিচ্ছবি দেখে মুক্তিযুুুদ্ধের ইতিহাসের তাৎপর্য। বঙ্গবন্ধুকে আমি ভালবাসি আর ম্যুরাল নিমার্ণ করাটা আমার একটি স্বপ্ন ছিল। আজ আমি আমার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হয়েছি। বঙ্গবন্ধুর এ প্রতিকৃতি নিমার্ণ করতে পেরে নিজেকে আজ ধন্য মনে করছি।

ইনাম/সময়নিউজবিডি টোয়েন্টিফোর।      

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com