সংবাদ শিরোনাম
আপনাদের ঘামের দাম আমি রক্ত দিয়ে হলেও পরিশোধ করবো; সিঙ্গারবিলের জনসভায় জাবেদ পত্তন ইউনিয়নের সম্মান রক্ষায় জাবেদকে ভোট দেবে বলে মাশাউড়াবাসীর ঐক্যবদ্ধ অঙ্গীকার এবার রবীন্দ্রনাথের ‘হৈমন্তী’ হয়ে আসছেন ঐশিকা ঐশি দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর ফের ব্রাহ্মণবাড়িয়া তিতাস গ্যাস ফিল্ডের ১৪ নম্বর কূপ থেকে গ্যাস উত্তোলন শুরু উপজেলা পরিষদ নির্বাচন: আখাউড়ায় মনির ও কসবায় ছাইদুর রহমান বিজয়ী বিজয়নগরে বজ্রপাতে এক যুবকের মৃত্যু সরাইলে অসহায় দুঃস্থদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ আখাউড়ায় চেয়ারম্যান প্রার্থী মুরাদের সভা থেকে বিরিয়ানি জব্দ বিজয়নগরে বিপুল পরিমাণ গাঁজা উদ্ধার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হোন্ডা-সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষ।। নিহত-১।। আহত-৫

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষ কি সংবিধানের মৌলিক অধিকার ভোগ করবে না ; সংবাদ সম্মেলনে সাদ কান্ধলভীর অনুসারীরা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষ কি সংবিধানের মৌলিক অধিকার ভোগ করবে না ; সংবাদ সম্মেলনে সাদ কান্ধলভীর অনুসারীরা

স্টাফ রিপোর্টার//সময়নিউজবিডি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সব মসজিদে তাবলিগ কার্যক্রম পরিচালনা করতে দেয়া ও মার্কাজ মসজিদ হস্তান্তরের দাবি জানিয়েছেন ভারতের দিল্লির মাওলানা সাদ কান্ধলভীর অনুসারীরা।
শুক্রবার (২২ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় শহরের মেড্ডা এলাকায় জেলা মার্কাজের অস্থায়ী কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে তারা এ দাবি জানান।

মাওলানা সাদ কান্ধলভি অনুসারীদের পক্ষে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে প্রভাষক মোঃ সোহরাওয়ার্দী বলেন, মাওলানা জোবায়ের আহমেদের অনুসারীদের বাঁধার মধ্যেই আমাদের বিভিন্ন জামাত বিভিন্ন মসজিদে যাচ্ছে। নানা সময়ে তারা বিভিন্ন মসজিদ থেকে আমাদের জামাতকে জোরপূর্বক বের করে দিয়ে হানাহানির পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। 

প্রভাষক মোঃ সোহরাওয়ার্দী আরও বলেন, গত ২০ নভেম্বর বিকেলে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুর রহিম তার নিজ মহল্লার (পশ্চিম পাইকপাড়া) মসজিদে কয়েকজন এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নিয়ে দোয়া করার জন্য একত্রিত হয়েছিলেন। দোয়া শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মাওলানা জোবায়ের আহমেদের অনুসারী ৭০/৮০ জন মাদ্রাসা ছাত্র মসজিদে ঢুকে আক্রমণ করে। এ সময় তারা আবদুর রহিমের গায়ে হাত তুলেন এবং ধাক্কাধাক্কি করেন। এক পর্যায়ে তিনি নিস্তেজ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

প্রশাসন কোনো শক্ত পদক্ষেপ না নেয়ায় তাদের (জোবায়ের অনুসারী) সাহস দিন দিন বাড়ার কারণেই এই পরিণতি দাবি করে সোহরাওয়ার্দী আরো বলেন, ওইদিন রাতে জেলা প্রশাসকের বাসভবেন গেলে তিনি ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আমাদের বলেন- এটি জাতীয় পর্যায়ের সমস্যা। আমরা এর কোনো সমাধান দিতে পারব না। প্রশাসনের কাছে প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে তিনি বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া কি আলাদা কোনো রাষ্ট্র? এখানে কি বাংলাদেশের সংবিধান প্রয়োগযোগ্য নয়? ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষ কি সংবিধানের মৌলিক অধিকার ভোগ করবে না?
এসময় তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সকল মসজিদে মাওলানা সাদ কান্ধলভীর অনুসারীদের তাবলিগ জামাতের কার্যক্রম পরিচালনা করতে দেয়াসহ জেলা শহরের বিরাসার এলাকার মার্কাজ মসজিদ তাদের কাছে হস্তান্তরের দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে তাবলিগ জামাতের মুরব্বি মাওলানা আনিসুর রহমান ও আব্দুল আহাদসহ মাওলানা সাদ কান্ধলভীর অনুসারীরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, তাবলিগ জামাতের কার্যক্রম পরিচালনা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ঢাকার মাওলানা জোবায়ের আহমেদের অনুসারীদের সঙ্গে দিল্লির মাওলানা সাদ কান্ধলভীর অনুসারীদের বিরোধ চলে আসছে। এই বিরোধের জেরে দুই পক্ষের মুখোমুখি অবস্থানের কারণে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রায়ই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। 

ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।     

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com