সংবাদ শিরোনাম
পাটগ্রামে রাসেলস ভাইপার সাপ সন্দেহে মেরে ফেলা হলো দুইটি সাপকে সাইলোর মতো খাদ্যভান্ডার ছিলো বলে আমরা করোনা ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের মতো সমস্যা গুলো অতিক্রম করতে পেরেছি; খাদ্য মন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে শেরপুরে বাড়ছে নদ-নদীর পানি তিস্তাপাড়ের ২ হাজার পরিবার পানিবন্দি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পৃথক স্থানে বজ্রপাতে দু’জন নিহত আশুগঞ্জে মাদক সেবন নিয়ে বাক-বিতন্ডার জেরে যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা পুলিশের উপর হিজড়াদের হামলা গ্রেফতার ৪ মাহিন্দ্র ট্রাক্টারের স্প্রিংয়ে গলা আটকে কৃষকের মৃত্যু বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক কাবাডি টুর্নামেন্টে টানা চতুর্থবার চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ মুজিব মুর‍্যালে শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে ইবি বঙ্গবন্ধু পরিষদের কার্যক্রম শুরু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের গাড়িতে অগ্নিসংযোগের মামলায় জামাত শিবিরের ২১ নেতার সাঁজা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের গাড়িতে অগ্নিসংযোগের মামলায় জামাত শিবিরের ২১ নেতার সাঁজা

স্টাফ রিপোর্টার//সময়নিউজবিডি

পুলিশের গাড়িতে হামলা ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার আসামী হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা জামাতের শীর্ষ নেতা সহ ছাত্রশিবিরের ২১ জনের দুই বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড ও দুই হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশ দিয়েছেন আদালত।
রবিবার (১১ অক্টোবর) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ পারভেজ এর আদালতে এ দণ্ডাদেশ দেওয়া হয়।
তবে রায় ঘোষণাকালে আদালতে সাতজন আসামী উপস্থিত থাকলেও জেলা জামাতের বর্তমান ও সাবেক আমিরসহ অন্যান্য আসামীরা অনুপস্থিত ছিলেন। 
রায় ঘোষণার সময় ২১ আসামীর মধ্যে মোঃ শহিদুল ইসলাম, সানাউল্লাহ, কাজী আবু জাহের, এমানুর রহমান, মহসিন মিয়া, ফরহাদ উদ্দিন ও আজিজুল হাকিম তানভীর উপস্থিত ছিলেন।
জানা যায়, গত ২০১২ ইং সনের ৪ ডিসেম্বর চারদলীয় জোটের হরতাল চলাকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের পৌর এলাকার পীর বাড়িতে টহল পুলিশের গাড়িতে অগ্নিসংযোগ, হামলা ও ভাংচুর চালানো হয়। এ ঘটনায় জেলা জামাতের তৎকালীন আমির কাজী নজরুল ইসলাম খাদেম, বর্তমান আমির সৈয়দ গোলাম সারোয়ার সহ ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত আরো কয়েকজনকে আসামী করে রাতে পুলিশের তৎকালীন উপ-পরিদর্শক (এসআই) হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে মামলাটি তৎকালীন এসআই আতিকুর রহমান মামলাটি তদন্ত করে ২০১৩ ইং সনের ৩১ আগস্ট মামলায় উল্লেখিত আসামী সহ মোট ২১ জনকে আসামি করে আদ্লতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।
পরে আদালত স্বাক্ষী প্রমাণের ভিত্তিতে রবিবার ২১ জন আসামিকে দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও প্রত্যেককে দুই হাজার টাকা জরিমানা করে রায় দেন।
এ বিষয়ে আসামি পক্ষের বিজ্ঞ আইনজীবী মনিরুজ্জামান জানান, আমরা এ রায়ে সন্তোষ নয়। ন্যায়বিচার চেয়ে এই রায়ের বিরুদ্ধে আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করবো। 
এ বিষয়ে বাদীপক্ষের আইনজীবী নাজমুল হোসেন সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, এই রায়ে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। 
ইনাম/সময়নিউজবিডি টুয়েন্টিফোর।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Somoynewsbd24.Com